adsense কী?কিভাবে আয় করব?কত টাকা পাব?এডসেন্স a to z বিসতারিত part 2

Posted on : October 9, 2018 | post in : Google Adsens,Online Earning |2 Replies |

adsense বা গুগল এডসেন্স কি? কিভাবে আয় করব and কত আয় হবে এডসেন্স থেকে৷ কিভাবে টাকা পাব !

    কিভাবে একাউন্ট খুলব and ভেরিফাই করব মৌটকথা google adsense নিয়ে A TO Z আলোচনা করব আজ ৷

adsense থেকে আয়

adsense কী?কিভাবে আয় করব?কত টাকা পাব?এডসেন্স a to z বিসতারিত part 1

adsense কী?কিভাবে আয় করব?কত টাকা পাব?এডসেন্স a to z বিসতারিত part 2

adsense কী?কিভাবে আয় করব?কত টাকা পাব?এডসেন্স a to z বিসতারিত part 3

adsense নিয়ে কমন কিছু প্রশ্ন ও উত্তর

প্রশ্ন ১.adsense জন্য লাইফ টাইম ব্লগিং করতে আসলে কোনটি বেছে নেয়া ভালো? (blogspot na wordpress)

উত্তরঃ আমার মতে একজন প্রফেশনাল ব্লগারের উচিত অবশ্যই শুরুতে যেকোন নির্দিষ্ট টপিক নিয়ে শুরু করা।

আমার এই কথার পিছনে কারণ হলঃ

1।আপনি নির্দিষ্ট টপিকে seo করা ব্রড টপিকের চেয়ে তুলনামুলক ভাবে অনেক সহজ।

২। নির্দিষ্ট টপিক নিয়ে কাজ করলে আপনি আপনার এ্যাডসেন্স থেকে কাঙ্ক্ষিত cpc পাবেন, but ব্রড টপিকে a সেটা পাবেন না।

  1. যেমন : android app নিয়ে করতে পারেন ৷ But, যদি আপনার নির্দিষ্ট টপিক নিয়ে কাজ করার পরেও সময় থাকে আপনি ব্রড টপিক নিয়ে কাজ করতে পারেন।
      1. 2 অবশ্যই প্রোফেশনালই wordpress এ করবেন ৷
        এখন আসি আপনি কি ফ্রি blog খুলবেন না পেইড মানে free blogspot na ki hosting + domin নিয়ে blog করবেন?
    1. আর ফ্রি করতে চাইলে blogspot .

(যেকোনো একটি topics নিয়ে লিখা ব্লগ কে বলে niche ব্লগ এবং সব topics নিয়ে যদি একটি ব্লগে লেখা হয় তাকে আমরা বলি Broad ব্লগ.

যেমন www.tipscountbd.com ব্লগটি একটি Broad blog. আর এই ব্রড সাইটে ভিজিটর বেশি পাবেন সব সুমা )

প্রশ্ন ২. কনটেন্ট নির্ভর blogging এর ফিউচার ভালো না, apps download জাতীয় blogging এর ফিউচার ভালো একজন প্রফেশনাল ব্লগার এর জন্য?

    উত্তরঃ এটা বলা সত্য যে contant নির্ভর ব্লগিং এর ফিউচারই সব চেয়ে ভালো।

আর আপনি যে টপিকস এর কথা বলছেন Apps Download, সেটা তো adsense problem করবে।

ব্লগের শুরুর দিকে হয়তো আপনি সাময়িক সময়ের জন্যে এ্যাডসেন্স ইউজ করতে পারবেন,

কিন্তু সাইটের জনপ্রিয়তার সাথে সাথে আপনার এ্যাডসেন্স ও ব্যান করে দিবে গুগল।

সবাই জানেন যে, গুগল কপিরাইট কন্টনেট কিংবা কপিরাইট অন্য কোন কিছুতেই গুগল তাদের এ্যাডস দেয় না।

আর এ্যাপ্স ডাউনলোড এর ক্ষেত্রেও কপিরাইটের সমস্যায় পড়বেন। সুতরাং, আমার রিকমেন্ড কন্টেন্ট নির্ভর ব্লগিংই করুন।

প্রশ্ন ৩. adsense এর জন্য আমাদের মিনিমাম কত সার্চ ভলিউম এর কিওয়ার্ড নেয়া দরকার ?

 

উত্তরঃ কোন লিমিট নেই। আপনি যত খুশি সার্চ ভলিউম এর কিওয়ার্ড নিতে পারেন। তবে কম্পিটিশন এবং সিপিসি দেখেই কিওয়ার্ড বাছাই করবেন।

প্রশ্ন ৪. কোন কোন টপিক গুলো কে ignore করব এবং কোন কোন টপিক ও কেটাগরি নিয়ে শুরু করা উচিত bloging ক্ষেত্রে ?

    উত্তরঃ যদি আপনার টার্গেট এ্যাডসেন্স থাকে, তাহলে কপিরাইট কন্টেন্ট নিয়ে কাজ না করাই ভালো
    (যেমন Songs Download, Software Free Download, Movie Free Download etc) and এ্যাডাল্ট বা sex topick তো সম্পূর্ণরূপেই Ignore করবেন।
    টপিক চয়েজের ক্ষেত্রে আমার রিকমেন্ড Technology, Education, Health, Tips & Tricks, Tutorial etc নির্বাচন করুন !

প্রশ্ন ৫. শুরু তে blogspot দিয়ে blog করলে কোন প্রব্লেম আছে?

উত্তরঃ No। কোন প্রবলেম নেই। but আমার রিকমেন্ড ওয়ার্ডপ্রেস। আপনার site sro করার জন্য অনেক সুবিধা পাবেন ৷

ফলে ভিজিটর বেশি পাবেন and ইনকাম টাও বেশি পাবেন ৷

প্রশ্ন ৬. টার্গেট কি নির্দিষ্ট এক্টাই কিওয়ার্ড নাকি রিলেটেড all কিওয়ার্ড দিয়ে পোস্ট দিতেই থাকবো?

    উত্তরঃ মেইন কিওয়ার্ডের উপর তো পোস্ট করবেনই। পাশাপাশি Relavent Keyword নিয়েও পোস্ট করবেন।

হ্যাঁ, Relavent লং টেইল কিওয়ার্ডে দিয়ে প্রতিনিয়ত পোস্ট করবেন। তবে Keyword Density এর দিকে খেয়াল রাখবেন অবশ্যই। সেটা যেন খুব বেশি না হয়। চেস্টা করবেন ২-৩ এর মধ্যে রাখতে।

    Keyword Density চেক করার জন্যে অনলাইনে অনেক টুলস পাবেন।

প্রশ্ন ৭.site seo এর জন্য কোন মেথড গুলো এখন আর কাজ করে না and কোন বিষয় গুলো অবসসই করব site রাঙ্কিং এর জন্য?

    উত্তরঃ এই ব্যাপারে কিছু বিতর্ক আছে। তবে যেই সব বিষয়ে সবাই একমত, সেগুলো হচ্ছেঃ

লিঙ্ক বিল্ডিং আগের মত কাজ করে না। যদি না সেটা নিশ বা সেম রিলেটেড ন্যাচারাল ব্যাঙ্কলিঙ্ক না হয়। আবার ব্লগ কমেন্টিংও কাজ করে না, যদি না সেটা নিশ বা রিলেটেড না হয়।

    এছাড়াও ডিরেক্টরি সাবমিশন আগের মত কাজ করে না। তবে এখন জোড় দিতে হবে সোশ্যাল মিডিয়া’র দিকে।

আর লিঙ্ক হুইল ও লিঙ্ক পিরামিড করতে পারেন তবে নিশ রিলেটেড হতে হবে। (এটা নিয়ে অনেকের মত এই যে, লিঙ্ক হুইল আর পিরামিড এখন খুব একটা কাজে দেয় না।তবে আমার অনেক কাজে দিয়েছে এবং দিচ্ছে)

এছাড়াও অনপেজ অপ্টিমাইজেশন, সঠিক উপায়ে কন্টেন্টে কিওয়ার্ডের ব্যবহার, কন্টেন্ট পাবলিশ করার পর সেটার সোশ্যাল মিডিয়া শেয়ারিং এর দিকে নজর দিতে হবে।

প্রশ্ন ৮.contant আইডিয়া পাওয়ার ভাল কোন উপায় যেখান থেকে ভালমানের cntant পাব?

উত্তরঃ গুগল এ্যাডওয়ার্ডস। কিওয়ার্ড আইডিয়াও পাবেন, সাথে কন্টেন্ট আইডিয়াও পাবেন।

এছাড়াও popular ব্লগগুলো নিয়মিট ভিজিট করে দেখুন কোন ধরণের কন্টেন্টে মানুষের আগ্রহ বেশী।

প্রশ্ন ৯. ইউটিউব অ্যাডসেন্স এপ্লাই করেছিলাম us অ্যাড্রেস দিয়ে যেটা আমার কাজিনের। তবে এপ্রুভালের পর কান্ট্রি চেঞ্জ করতে পারছিনা। সেই ঠিকানায় অ্যাডসেন্সের লেটার গেলে আমি অ্যাড্রেস ভেরিফাই করতে পারবো ।কিন্তু পেমেন্ট মেথড অ্যাড করার সময় আমি কিভাবে বাংলাদেশের ব্যাংক অ্যাড করবো ?

    উত্তরঃNo problem ! আপনার us ঠিকানায় ভেরিফিকেশন লেটার গেলে সেখান থেকে কোড জেনেই আপনি খুব সহজে এ্যাকাউন্ট ভেরিফাই করতে পারেন।
    আর এ্যাকাউন্টে 100$ হলেই পেমেন্ট মেথড এ ব্যাঙ্ক এ্যাড্রেস এ্যাড করতে পারবেন। {Adsense account > Payment Setting >Add a New Payment Method}

প্রশ্ন ১০. বাংলা কন্টেন্ট নিয়ে কাজ করতে গেলে কি কি বিষয় মেনে চলতে হবে? বাংলাদেশি ট্র্যাফিকের ইম্প্রেশনে পেমেন্ট কত পাওয়া যায়?

উত্তরঃ বাংলা কন্টেন্টে সাইটের এ্যাডসেন্স a পাবেন না। তবে মাসে ৩০-৪০ লাখের উপরে ট্র্যাফিক থাকলে আপনি গুগল এর DoubleClick এ্যাড করতে পারবেন।

প্রশ্ন ১১. ক্লিক রেট কত বাড়লে অ্যাকাউন্ট ব্যান খেতে পারে?

    উত্তরঃ CTR ১০ এর নিচে থাকা ভালো। ইউটিউবের ক্ষেত্রে ১০-১৫

প্রশ্ন ১২. একই চ্যানেলে বাংলা/ইংরেজি ভিডিও থাকলে প্রবলেম হতে পারে কি?

    উত্তরঃ না, কোন সমস্যা নেই।

প্রশ্ন ১৩. আমি ইউটিউব এর মাধ্যমে গুগল আডসেন্স পাইছি । আমি কি এই অ্যাকাউন্ট টা দিয়ে আমি কি বাংলা ওয়েব সাইট / বা / যেকোন সাইট এড দিতে পারব নাকি এড কোড দিলে আমার অ্যাকাউন্ট ব্লক করে দেবে ?

উত্তরঃ না। শুধু বাংলা ইংরেজি নয়, কোন ওয়েবসাইটেই দেখাতে পারবেন না।

ইউটিউবের মাধ্যমে পাওয়া এ্যাডসেন্স এ্যাকাউন্ট গুলো মুলত Hosted Adsense Account. এই এ্যাকাউন্টের এ্যাড আপনি বড়জোড় ব্লগারে ইউজ করতে পারবেন (Custom Domain এ নয়)।প্রশ্ন

প্রশ্ন ১৪. ইউটিউব এর ভিডিও তে অ্যাড দেখায় কিন্তু কোন ডলার এড হছে না আমার অ্যাকাউন্ট তে ।ইউটিউব তে কি অ্যাড ভিউ তে ডলার অ্যাকাউন্ট তে যোগ হয় না ?

    উত্তরঃ ইউটিউবের প্রতিদিনের ইনকাম দেখতে এই টিউটরিয়াল টা দেখুন।https://www.youtube.com/watch?v=zdoQLJwrYZIপ্রশ্ন

প্রশ্ন ১৫. আমি যদি শুধু ডোমেইন নিয়ে SEO করি আর সেই ডোমেইন কে পার্ক করি sedo.com এ , তাহলে কি sedo এমনি adsense দিবে?

উত্তরঃ SEDO অটোমেটিকই এ্যাড দিবে। তবে সেটা আপনাকে SEDO এ্যাকাউন্ট থেকে কনফিগার করে নিতে হবে।

প্রশ্ন ১৬. Sedo তে ডোমেইন সেল্ না হওয়া পর্যন্ত কি adsense থেকে earn করা যাবে?

    উত্তরঃ Domain সেল হওয়ার আগ পর্যন্ত SEDO থেকে আপনি এ্যাডসেন্সের রেভিনিউ পাবেন।

প্রশ্ন ১৭. আমার ব্লগ এ প্রতিটি কন্টেন্ট ইউনিক এবং ২০০০+ শব্দের। এরকম কতগুলো কন্টেন্ট পোস্ট করে তারপরে adsense এর জন্য আবেদন করা ভাল হবে?

উত্তরঃ কন্টনেট ইউনিক হলে আর ভিজিটর যদি ৫০০+ হয় তাহলেই আপনি এ্যাডসেন্সের জন্যে আবেদন করতে পারেন।

আমার রিকমেন্ড আগে কন্টেন্ট ৩০/৪০ টা হলে ব্লগ এ ভিজিটর আনার দিকে মনোযোগ দিন। পরে এ্যাডসেন্সে আবেদন করুন। হ্যপী ব্লগিং।

প্রশ্ন ১৮. ১. আমি কিভাবে আমার এড্রেসে ভেরিফিকেশন কোড পাঠাতে পারবো ?২. ইউটিউব থেকে কিভাবে অ্যাডসেন্স একাউন্টে ব্যালেন্স ট্রান্সফার করতে পারবো ?

উত্তরঃ এটা এ্যাডসেন্স এ্যাকাউন্ট থেকেই পাঠাবে, যখন ব্যালেন্স ১০ ডলারের উপরে হবে তখন। আর ব্যালেন্স আপনাকে ট্রান্সফার করতে হবে না। এর জন্যে গুগলই আছে। প্রতিদিনের ইনকাম দেখতে এই টিউটরিয়াল টা দেখুন।https://www.youtube.com/watch?v=zdoQLJwrYZI

প্রশ্ন ১৯. এ্যাডসেন্স এ টোটাল আরনিং আর ইস্টিমেট আরনিং এর মধ্যে তফাৎ কি ?

    উত্তরঃ তফাৎ বেশি কিছু নয়। এস্টিমেট আরনিং যা থাকে টোটাল আরনিং টা এর চেয়ে একটু কম হতে পারে।

কারণটা, হচ্ছে অনেক সময় ফেক ক্লিক, কিংবা অতিরিক্ত ক্লিকের থেকেও কিছু ডলার এ্যাকাউন্টে জমা হয়ে যায়।

গুগল পুরা মাসের আরনিংটা কে রিভিউ করে একটা ফাইনাল আরনিং দাঁড় করা, যেটা আপনাকে পাঠানো হবে। সেটাই হচ্ছে Total Earning.

প্রশ্ন ২০. আমার সাইট এর ৮০% ভিসিটর যদি facebook থেকে আসে এবং আমি ঐ সাইট যদি adsense ব্যবহার করি তাহলে কি অ্যাকাউন্ট disable হবে?

    উত্তরঃ না। কোন প্রবলেম হবে না।

প্রশ্ন ২১. অনেক প্রতিষ্ঠিত ব্লগার adsense লিঙ্ক শেয়ার করতে নিষেধ করেন, কেন?

উত্তরঃ কারণটা আসলে আমাদের দেশের কিছু হিংসুটে ব্লগার (সবাই না) এবং আম পাবলিক। কারণ, বেশির ভাগ মানুষই কারো ভালো দেখতে পারে না। আপনি যদি নিয়মিত আপনার ব্লগের ইনকাম দেখান আর আপনার সাইট এর নাম জানান, তখন একদল হিংসুটে লোক আপনার ব্লগে গিয়ে ক্লিক স্প্যামিং শুরু করবে।ফলাফলস্বরূপ, গুগল আপনার এ্যাকাউন্ট ব্যান করে দিবে।

এছাড়াও কন্টেন্ট কপি করা, আইডিয়া নিয়ে সেইম ব্লগ বানানো সহ অন্যান্য সমস্যা তৈরি করে। তারচেয়েও বড় ব্যাপার হচ্ছে, প্রত্যেক প্রো-ব্লগাররাই কম বেশী বিপদে পড়েছে তাদের ব্লগ এবং ইনকাম জানিয়ে।

    তাই, আমরা ব্লগ এ্যাড্রেস ও ইনকাম এর বিষয়ে একটু গোপনীয়তা অবলম্বন করি। এটা সেফটির জন্যে। হ্যাপী ব্লগিং।

প্রশ্ন ২২. Domain Parking SEO কিভাবে করবো ?

    উত্তরঃ Domain Parking করার আগে অন পেজ অপ্টিমাইজেশন এবং Domain Parking করার পরে অফ পেজ অপ্টিমাইজেশন।

adsense কী?কিভাবে আয় করব?কত টাকা পাব?এডসেন্স a to z বিসতারিত part 3

Me ON Facebook

 
Theme Designed Bybody{border:6px solid orange; margin:6px;}